Life Style
Trending

প্রসার ঘটবে যেসব ব্যবসা ক্ষেত্রে-2021 সালে

প্রসার ঘটবে যেসব ব্যবসা ক্ষেত্রে-২০২১ সালে

 

“বিষে ভরা বিশ” সাল চলে গেলেও কোভিড-১৯ এর প্রভাব কিন্ততু শেষ হয়ে যায়নি এখনো।বিশ্ব জুড়ে অনেক গুলো ঔষুধ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভ্যাকসিন তৈরির জন্য কাজ চালিয়ে গেলেও,পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে এখনো বেশ অনেক টা লম্বা সময় পারি দিতে হবে।ব্যবসাক্ষেত্র থেকে শুরু করে চাকরির বাজার সকল ক্ষেত্রেআ ধ্বস নেমে গেছে এই কভিড-১৯ এর জন্য।তবে ২০২০ সালে এমন কিছু ব্যবসা ক্ষেত্র উন্মোচিত হয়েছে যা হয়তো এই ধরণের একটা মহামারি না আসলে আমরা চিন্তাও করে দেখতাম না।বরং বলা যেতেই পারে মহামারি এই ব্যবসা ক্ষেত্রসমূহের জন্য আশির্বাদ হয়ে এসেছে।

বাসাই থেকে অফিসের কাজ করা,অনলাইন পণ্য ডেলিভারি সার্ভিস,ই-কমার্স সহ এফ-কমার্সের প্রসার,টেলিমেডিসিন সুবিধা,অনলাইন এডুকেশন প্লাটফর্মসহ এমন নানা রকম নতুন নতুন মাধ্যমের দেখা আমরা পেয়েছি কোভিড-১৯ এর দোয়াই দিয়ে।

১.ঔষুধ বাণিজ্যের প্রসার

ঔষুধ বাণিজ্যের প্রসার
ঔষুধ বাণিজ্যের প্রসার

কোভিড-১৯ এর সময় পণ্য উৎপাদনকারণ প্রতিষ্ঠানগুলোর মাঝে সবচেয়ে ব্যস্ত সময়তম সময় কাটিয়েছে ঔষুধ নিমার্ণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।করোনা ভাইরাস আসার পরপরই পুরো পৃথিবীতে টেস্টিং কিটের ব্যাপক চাহিদা দেখা দেয়।

বিশ্বব্যাপী এই সংকট নিরসনে প্রায় সবগুলো ঔষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানই টেস্টিং কিট প্রস্তুতের উপর নজর দেয়।এমতাবস্থাই করোণা টেস্টের চাহিদাও বেড়ে যায়।সেদিক বিবেচনা করে এখনো অনেক প্রতিষ্ঠান এই চাহিদা মেটানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

তবে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দিকটি সব থেকে বেশি প্রভাব ফেলেছে।যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান মার্ডানা mRNA এবং যুক্তরাজ্য ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ফাইজার-বাজারে টিকা নিয়ে আসলেও সেটি এখনও ব্যাপক বিস্তারের মুখ দেখেনি।বরং অনেক দেশেই এই ভ্যাকসিনের এখনো ক্লিনিকাল ট্রায়াল চলছে।পাশাপাশি অন্যান্য দেশের ঔষুধ প্রস্তুতকারণ প্রতিষ্ঠানগুলোও চেষ্টা করছে নিজেদের তৈরিকৃত ভ্যাকসিন বাজারে নিয়ে আসার।তাই নিশ্চিত ভাবেই ঔষুধ বানিজ্যের জন্য,স্মরণীয় হয়ে থাকবর ২০২১ সাল।

২.রিমোট ওয়ার্কিং কিংবা ঘরে থেকে কাজ

২০২০ সালের অভিজ্ঞতার পর অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানই ভাবতে শুরু করেছে যে তাদের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আসলেই কোনো নির্দিষ্ট অফিসের কোনো রকম প্রয়োজন আছে কিনা।কারণ কোয়ারাইন্টাইনের জন্য ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের ব্যবহার অনেক বেশি বেড়ে গেছে।নিয়মিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠদান থেকে শুরু করে অফিসের মিটিং সবই এখন বিভিন্ন অন-লাইন কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে করা সম্ভব হচ্ছে।আর এজন্য গুগল মিট,জুম,স্ট্রিমইয়ার্ডের মত ভিডিও কনফারেন্সিং প্লাটফর্মগুলো ব্যপক আকারে ব্যবহার হচ্ছে।

আর অন-লাইন কনফারেন্সিংয়ের সুবিধার জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক কোম্পানিগুলোও নানা রকম অফার দিচ্ছে সব কিছু মিলিয়ে রিমোট ওয়ার্কিংয়ের প্রভাব সামনের দিনগুলোতে ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধিপাবে।যদিও এটি সম্পর্ণ ভাবে অফিসের কাজকে সম্পাদন করতে পারবে না,কিন্তু যেসব ক্ষেত্রে অফিসের অফিসের কর্মচারী না রাখলেও চলে,সে সব ক্ষেত্রে অনেক প্রতিষ্ঠানই এই রিমোট ওয়ার্কিং এর সুবিধা নিচ্ছে এখন।এতে করে প্রতিষ্ঠানগুলো অফিস ভাড়ার একটা বড় টাকা বেঁচে যাচ্ছে এবং অল্প সংখ্যাই কর্মচারী দিয়ে কাজ হয়ে যাচ্ছে বলে খরচের পরিমাণও অনেক কমে যাচ্ছে।তাই ২০২১ সালে উল্লেখ সংখ্যক প্রতিষ্ঠান রিমোট ওয়ার্কিং অর্থ্যাৎ বাসাই থেকে কাজ করার দিকে ঝুঁকে পড়বে।

৩.কন্টাক্টলেস ডেলিভারি সার্ভিসেস

 

ডেলিভারি সার্ভিসেস

কোভিট-১৯ মহামারীর মাঝে বেশির ভাগ কাজ বন্ধ হয়ে গেলেও বেড়েছে বিভিন্ন রকমের ডেলিভারির কাজ।ঔষুধপত্র থেকে শুরু করে খাবার কিংবা বাসার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য কিংবা প্রস্তুতকৃত খাবার সবক্ষেত্রেই এখন হোম ডেলিভারির দিকে ঝুকে পরছে।

এছাড়া ডেলিভারি ম্যান এবং ক্রেতার মধ্যকার সামাজিক দূরুত্ব নিশ্চিত হয় বলে প্রায় সকল প্রতিষ্ঠান কন্টাক্টলেস ডেলিভারি সার্ভিস দিচ্ছে।এর দরুণ ক্রেতা সরাসরি ডেলিভারি ম্যানের নিকট থেকে সরাসরি পণ্য গ্রহন না করে নিজের ইচ্ছামত সময়ে পণ্য গ্রহন করতে পারে।পশ্চিমা বিশ্বে এধরণে সুবিধা আগে থেকেই চালু থাকলেও আমাদের দেশেও এই সার্ভিস এখন সুপরিচিত হয়ে উঠেছে।তাই ডেলিভারি প্রতিষ্ঠানগুলো চাইলেও এই সুবিধা আনতে পারে তাদের ত্রেতাদের মন জঢ করার উদ্দেশ্যে।

৪.টেলিহেলথ ও টেলিমেডিসিন

সমাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের জন্য ২০২০ সালে বেশ দীর্ঘ একটা সময় ধরে সরাসরি চিকিৎসা সেবা বন্ধ ছিলো।এজন্য বেশির ভাগ রোগি ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা গ্রহণে বাধ্য হয়েছিল।সরকারি ভাবে অনেকক্ষেত্রে এই সুবিধা দেওয়া হলেও,বেসরকারি টেলিহেলথ সার্ভিস গড়ে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে ২০২১ সালে।এর পাশাপাশি ঔষুধ সরবরাহের কাজেও অন-লাইন মাধ্যম প্রাধাণ্য পেতে পারে এই ২০২১ সালেই।এজন্য চিকিৎসা সেবায় সুবিধার কথা চিন্তা করে প্রযুক্তিখাতে বিনিয়োগ হতে পারে একটি উত্তম সিদ্ধান্ত।

 

৫।অন-লাইন শিক্ষা মাধ্যম

অন-লাইন শিক্ষা মাধ্যম
অন-লাইন শিক্ষা মাধ্যম

মহামারির প্রভাবে সবথেকে ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষেত্রগুলার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে শিক্ষাক্ষেত্র।প্রায় ২বছর হতে চলল সব ধরণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ।কিন্তু শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাবার উদ্দেশ্যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অন-লাইন মাধ্যম ব্যবহার করে পাঠদান চালিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু ঠিকঠাক নেটওয়ার্কের অভাবে নিয়মিত পাঠদান থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে লাক্ষো শিক্ষার্থীকে।সেই সাথে নিয়মিত শ্রেণিকক্ষে পাঠদান এবয় অন-লাইন মাধ্যমে পাঠদানের মধ্যে রয়েছে ব্যপক পার্থক্য।এ সকল সমস্যার কথা মাথাই রেখেই অন-লাইন শিক্ষা মাধ্যমে আসতে পারে ব্যপক পরিমাণে বিস্তার।

ভবিষ্যতে অন-লাইন মাধ্যমে পাঠদানের কথা মাথাই রেখে নেওয়া হতে পারে বেশ কিছু পদক্ষেপ বা পাল্টে যেতে পারে শিক্ষাক্ষেত্রের চিত্র।এর একটি উদাহরণ হচ্ছে “খান একাডেমি”।ইতিমধ্যে আমাদের দেশেই “টেন মিনিট স্কুল”-এর মত বেশ কয়েকটি অন-লাইন শিক্ষা মাধ্যম চালু রয়েছে।এছাড়াও কোর্সেরা কিংবা উডেমির মতো বেশ কয়েকটি অনলাইন শিক্ষা মাধ্যম গড়ে উঠছে বর্তমান এই সময়ে।গতানুগতিক পড়ালেখার পাশাপাশি বাড়তি কিছু শেখার জন্য,এসব মাধ্যম অনেক শিক্ষার্থিই ব্যবহার করছে।

৬।মাইক্রোমোবিলিটির বাড়তি চাহিদা

কোভিড-১৯ মহামারির মাঝে যানবাহন চলাচলে এসেছে ব্যপক বিধিনিশেষ।নিরাপত্তা ও অর্থ সাশ্রয়ের বিষয়টি চিন্তা করে অনেকেই এখন ব্যাটারিচালিত কিংবা বহনযোগ্য যানবহনের দিকে বেশি ছুটছে।পাশাপাশি হোমপডেলিভারি ও কুরিয়ার সার্ভিসের কাজের প্রচার এবং প্রসার বৃদ্ধি পাওয়াও অনেকেই এই পেশাই এখন আসতে আগ্রহ দেখাচ্ছে।ফলে অল্প খরচে একটি ভালো আয়ের ক্ষেত্র তৈরা করা এবং সহজেই যানজট এড়িয়ে চলাচল করার সুবিধার কথা চিন্তা করে মাইক্রোমোবিল কিংবা ক্ষুদ্র যানবহনের ব্যবহার এই বছর বৃদ্ধি পেতে পারে।এজন্য এই ক্ষেত্রে বিনিয়োগ হতে পারে উত্তম একটি উপায়।দেশীয় উৎপাদন অথবা বৈদেশিক রপ্তানি দুটোই এই চাহিদা পূরণে কাজ করতে পারবে।

উপরের বিষয়গুলোর পাশাপাশি আরও অনেকগুলো ক্ষেত্র আছে যেসব জায়গায় ২০২১ সালে ব্যপর রকম প্রসারের সম্ভাবনা রয়েছে।বাংলাদেশ বর্তমান পরিস্থিতি ও সময়ের চাহিদা বিবেচনা করে উক্ত ক্ষেত্রসমূহে ব্যপক বিপ্লব ও প্রসার আসতে পারে।এই জন্য প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারলে তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লবের জন্য একটি অনন্য বছর হতে পারে ২০২১।

Thanks for visit.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button